দীর্ঘসূত্রিতা বা আলস্য এড়িয়ে চলো

নিজেকে প্রাণিত করা

খণ্ড ৫ঃ ভুলের থেকে শিক্ষা নাও !

দৃশ্য ১ঃ

তুমি বাড়ির থেকে দূরে ;নিজের ;শিক্ষানুষ্ঠানের কাছে থাকতে শুরু করেছো । তার জন্যে জরুরি ব্যয় যোগাড় করতে ;;আর্থিক সাহায্য কোথায় পাওয়া যায় সেটি নানা দিক খোঁজে বের করতে তুমি ;বদ্ধপরিকর। তুমি জানতে পেলে যে একটা ছাত্রবৃত্তির জন্যে ;সম্ভবতঃ তোমার যোগ্যতা রয়েছে এবং এর জন্যে ;নির্দ্ধারিত দিনটি হচ্ছে ;তোমার বিদ্যালয়ের ;;প্রথম দিনটি। তুমি ;আর্থিক সাহায্য চেয়ে ;কার্য্যালয়ে যোগাযোগ করলে। ;;সেখানকার দায়ত্বপ্রাপ্ত যিনি তিনি; বললেন যে ;আপনাকে ;প্র-পত্রটি পাঠিয়ে দেবেন । যাই হোক, তাঁর ;;কথা এবং ;বিদ্যালইয়ের ;প্রথম দিনটির আনন্দ তোমাকে এই কাজটির থেকে সরিয়ে নিয়ে এলো। ;;বিদ্যালয় শুরু হবার দিন কতক যেতেই তুমি টের পেলে ;যে এই জরুরি ;প্র-পত্রটি তোমার কাছে এসে পৌঁছোয়ই নি। এদিকে তখন ;অন্তিম সময়ও পেরিয়ে গেছে। তুমি ;দায়িত্বে থাকা ভদ্রলোকের সঙ্গে দেখা করলে ইনি বললেন যে তোমার কাগজটি; যথাসময়ে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। কিন্তু তুমি পাওনি আর ওদিকে শেষ দিনটিও পেরিয়ে গেছে। এখন তুমি কী করবে?

তোমার শাস্তিটির ( ছাত্রবৃত্তির থেকে ;বঞ্চিত হওয়াটা) ব্যাপারে ;প্রেক্ষাপটটি ;বিবেচনাতে নিয়ে আসা বেশ কঠিন কাজ। ;এই শাস্তিটি তোমার জন্যে ;সম্পূর্ণ অনাকাংক্ষিত। কিন্তু এই অভিজ্ঞতার থেকে কী শিক্ষা হলো?

প্রথমে কী ঘটেছে সেটি দেখা যাক । দুটো বাহ্যিক কারক এই দৃশ্যপটকে ;প্রভাবিত করেছেঃ প্র-পত্র নেয়া এবং নির্দ্ধারিত ( জমা দেবার ;) দিন।। হয় তুমি প্র-পত্রটি ;সংগ্রহ করে জমা দিতে ভুলেছ ;, নতুবা ;সেগুলো ডাকে হারিয়েছে । নতুবা কাগজগুলো পাঠানোই হয়নি । কিন্তু এখন সমস্ত ;কথাই গুরুত্বহীন হয়ে পড়েছে , কারণ জমা দেবার ;শেষ সময় পেরিয়ে গেছে । কারো উপর দোষ চাপিয়ে দিলেও পরইস্থিতির কোনো পরিবর্তন হবে না।

যাই হোক , তুমি যদি ;;প্র-পত্রটি ;জমা দেবার কাজটি তোমার ;;দিনপঞ্জীতে লিখে রাখতে , তবে তুমি ;এই সমস্যাটি এড়িয়ে চলতে পারতে । জমা দিবার জন্যে যাবার বেলা তুমি লক্ষ্য করেছো যে তোমার প্র-পত্রটি আনাই হয় নি, তখন সঙ্গে সঙ্গে কাজটি এগিয়ে যেতে পারতো ।

  • পরবর্তী বৃত্তির জন্যে ;এখনই তুমি ;নিজের ;দিনপঞ্জীতে লিখে রাখতে পারো ।
  • তুমি ;আর্থিক সাহায্যের ব্যাপারটা যিনি দেখেন তাঁর সঙ্গে দেখা করে ;অন্য আর কোনো বৃত্তি বা; ঋণ যদি আছে; সে নিয়ে আলোচনা করতে ;পারো।
  • তুমি মা-বাবা বা অভিভাবকের সঙ্গে ;আর্থিক দায়-দায়িত্ব নিয়ে আলোচনা করতে পারো।
  • অভিজ্ঞতার থেকে ;শিক্ষা নাওঃ অতিরিক্ত রণনীতির সঙ্গে ;সমস্যা সমাধানের জন্যে ;নিজেকে পুণরোদ্জীবিত করো ।

খণ্ড ২

তুমি ;একটা বিষয়ে অধ্যয়নের জন্যে ;অতি আগ্রহী । ;প্রবেশ-পর্য্যায়ের ;একটি ;পাঠ্যক্রমের জন্যে তুমি খুব শ্রদ্ধা করো এমন এক ;শিক্ষকের কাছে নাম নথিভূক্ত করিয়েছো। প্রথম পরীক্ষাটি এলো —বিষয় হলো গে’ ক্ষেত্র অধ্যয়নের জন্যে ;জরুরি ;শব্দ সম্ভার। পরীক্ষাতে ;অতি ভাল করবে বলে তুমি ;দৃঢ় বিশ্বাসী। পরীক্ষার আগের দিন রাতে তোমার ;বন্ধুরা; একজনের ;জন্মদিন উদযাপন করছে আর তুমিও সেখানে ;যোগ দিয়ে দেরি করে ফেললে। পরদিন পরীক্ষাতে বসলে। ক’দিন পর ফল বেরুলে দেখা গেল তুমি পাশতো করোই নি, উলটে তমার নম্বরটি শ্রেণির মধ্যে বেশ শেষের দিকেই রয়েছে । কী করবে এখন ?

আমরা ;নিশ্চিত যে তুমি ;নিজেকে নিয়ে ;ভুল করে ;উঁচু ধারণা পোষণ করছিলে, অধ্যয়ন বা পুনঃপাঠ করবার জন্যে ;সময় বের করে নাও নি। তুমি ;জন্মদিন; উদযাপন বা রাত করে বাইরে থাকার ;ফল কী ;হবে সেটি ;ধারণা করতে ;পারোনি।
এ ক্ষেত্রে ;পরীক্ষা এবং তমার ;;বন্ধুরা ;হলো ;বাহ্যিক কারক যেগুলো ;শ্রেণীতে ;শিক্ষাগ্রহণ আর ক্ষেত্রঅধ্যয়নে তোমার ;সামর্থ্য; ও ;উদ্যোগের উপর ;;বাজে প্রভাব ফেলল।

  • পরীক্ষাতে ;কোথায় ;ভুল করেছিলে ;তার ;;পর্য্যালোচনা করো।
  • সংশোধনীগুলো ;অধ্যয়ন করো।
  • বিষয়বস্তুর উপর ;আত্মবিশ্বাস আসার পর গিয়ে ;শিক্ষকের কাছে ;ব্যাখ্যা করো যে ;পরীক্ষাতে ;ভালো করবে বলে; নিজের ;;সামর্থ্যের উপর তোমার ছিল ;অতি আত্মবিশ্বাস।;
  • ক্ষতিপূরণের জন্যে কোনো ;সুযোগ আছে; কী নেই জিজ্ঞেস করো ।
  • বন্ধুদের কাছে যাও। এবং কী ঘটল তাকে ব্যখ্যা করো ।
  • ভবিষ্যতে উৎসব উদযাপন বা নৈশযাপনের মতো ;পরিস্থিতিতে ;বন্ধুদের ;সহযোগিতা চেয়ে নাও ।
  • একই ;শ্রেণি বা অধ্যয়ন বিষয়ের ;কোনো বন্ধু থাকলে এক সঙ্গে একটা ;অধ্যয়ন একক শুরু করো ।
  • একটি ;তালিকা ;প্রস্তুত করো এবং ;গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষা এবং ;নির্দ্ধারিত কাজ ;(assignment) ইত্যাদি টোকে ;রাখো।
  • লেখাপড়া আর সেই সংক্রান্ত জরুরি কাজ; ;সম্পূর্ণ করতে ;নিজের ;কাজগুলো ;অগ্রাধিকার ;ভিত্তিতে ;নিশ্চিত করে নাও ।

টমাস এডিসন অসফল পরীক্ষা-নিরীক্ষাগুলোকে সফলতার ;যাত্রাতে ;এক একটা অংশ হিসেবে ;ধরে নিয়ে ;গৌরব করতেন । তিনি একবার বলেছিলেন যে তিনি ;অসফল হন নি বরং তিনি ;;অসফলতার; ;১০,০০০ টা পথ খোঁজে পেতে ;;সফল হয়েছিলেন।

  • এর ;আগে তুমি কবে ;অসফল হলে ;বা; হয়েছিলে বলে ভেবেছিলে, অথবা ভেবেছিলে যে তুমি অন্যভাবে কাজটা করে ;যথেষ্ট ভালো ফল পেতে পারতে ।
  • তুমি কেন ভেবে নিয়েছো যে তুমি ;ভালো করে ;পারদর্শিতা দেখাতে পারো নি?
  • কাজটি অন্য কীভাবে করতে পারতে ? এই অভিজ্ঞতার থেকে তুমি কী ;শিখলে?
  • তুমি যা করলে ;তাকে ;মূল্যায়ন করবার জন্যে ;কি কেউ ;একজন নিরপেক্ষ ব্যক্তি রয়েছেন?
  • তোমার ;কোন অন্তর্নিহিত লক্ষ্য এই পরিস্থিতিতে কাজে লাগানো যেতো ?
  • তুমি ;;বর্তমানে ;একই রকম কোন ;পরিস্থিতির মধ্যে রয়েছো ?
  • তোমার ;দক্ষতা, হয়ে যাওয়া কাজের ফলাফল বা এটি যে ধারণাগুলো নিয়ে এসছে; তাকে পাল্টাতে; তুমি কোন একটা পরিবর্তন নিয়ে আসতে চাইবে?
  • এর থেকে তুমি এমন কী একটা ;শিক্ষা অর্জন করলে যাকে অন্য ;পরিস্থিতিতেও ;ব্যবহার ;করতে ;পারা যাবে ?
  • এই অভিজ্ঞতা তোমার ;দীর্ঘম্যাদী লক্ষ্যপূরণের ব্যাপারে কী করে সাহায্য করবে ;?

তুমি আমাদের শূন্য স্থান পূরণ করবার ;অনুশীলনটি পুরো করেছো ।

যদি তুমি তোমার ;উত্তরগুলো নিয়ে ;সন্তুষ্ট, তবে সেগুলো ছেপে নাও।

প্রজ্ঞান,
তিনসুকিয়া মহাবিদ্যালয়

To read Bengali text, please
download the Avro Keyboard
or the font SolaimanLipi